Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ৪ বৈশাখ ১৪২২ শনিবার ১৮ এপ্রিল ২০১৫
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  সম্পাদকীয়  উত্তর সম্পাদকীয়  খেলা  সংস্কৃতি  ঘরোয়া  পর্দা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
কলকাতায় ভোটের বোধন--সব্যসাচী সরকার, তারিক হাসান ও কাকলি মুখোপাধ্যায় ।। কংগ্রেসের সঙ্গে সুসম্পর্কের পথ খোলা রাখছে সি পি এম--দেবারুণ রায় ।। তৃণমূলের নেতারা খোশমেজাজে রয়েছেন--দীপঙ্কর নন্দী ।। পড়ে গিয়ে কপাল ফাটল বিমান বসুর--ভোলানাথ ঘড়ই ।। প্রতিবন্ধী স্কুলে ইট, জখম কাম্তি ।। কাশীপুরে তুলকালাম, অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা ।। গ্রেটার-মামলায় বেকসুর বংশীবদন-সহ ৪৩! ।। বোঝাপড়া, তাই কেন্দ্র বাহিনী পাঠায়নি: অধীর ।। পার্টিকে আকর্ষণীয় করার ডাক প্রভাত পটনায়েকের--গৌতম রায় ।। রাহুলকে সামনে রেখেই কৃষকদের লড়াইয়ে কং ।। শালিমার কাণ্ড ।। আজ গোপন ক্যামেরায় সি পি এমের নজরদারি
কলকাতা

কলকাতায় ভোটের বোধন

তৃণমূলের নেতারা খোশমেজাজে রয়েছেন

প্রেসিডেন্সি প্রবেশিকা, পরিকাঠামোর অভাব

আজ গোপন ক্যামেরায় সি পি এমের নজরদারি

এবার ভোটে ১০ জনের ভ্রাম্যমাণ পুলিস দল ৩৮টি

এবার প্রতিরোধ: কলকাতা সি পি এম

কলকাতায় ভোটের বোধন

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

সব্যসাচী সরকার, তারিক হাসান ও কাকলি মুখোপাধ্যায়




আজ, শনিবার কলকাতা পুরসভার ১৪৪টি ওয়ার্ডে নির্বাচন৷‌ ভোটগ্রহণ চলবে সকাল ৭টা থেকে দুপুর ৩টে পর্যম্ত৷‌ অবাধ, সুষ্ঠ নির্বাচন করতে বেশ কয়েকটি ব্যবস্হা নিয়েছে রাজ্য নির্বাচন কমিশন৷‌ এই প্রথম নির্বাচন কমিশন আকাশ পথে নজরদারিতে রাখছে ড্রোন৷‌ প্রতি বরোয় গাড়িতে থাকছে ক্যামেরা৷‌ কোনও ঘটনা ঘটলে দ্রুত ব্যবস্হা নেওয়া হবে৷‌ এবারের নির্বাচনে প্রার্থী ১,০৭৫ জন৷‌ ভোট দেবেন ৩৭ লক্ষ ৫৩ হাজার ২৫৬ জন ভোটার৷‌ নিরাপত্তা আঁটোসাঁটো করতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর ব্যবস্হা করেছে রাজ্য নির্বাচন কমিশন৷‌ সেই মতো শুক্রবার কলকাতায় এসে পৌঁছয় ৩ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী৷‌ বাহিনীতে রয়েছেন ৯০ জন জওয়ান৷‌ স্কটিশ চার্চ কলজের সামনে এক চ!র হেঁটেই রুট মার্চ করেন তাঁরা৷‌ সামান্য এই ক’জন জওয়ান নিয়ে কলকাতা পুরভোটে কতটা নিরাপত্তা ব্যবস্হা করা যাবে তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে৷‌ গত কয়েকদিনের মতো শুক্রবারও কাশীপুর-সহ কলকাতায় কয়েকটি জায়গায় গোলমাল হয়৷‌ ভোটের দিন যাতে এ ধরনের গোলমাল, সঙঘর্ষ না হয়, তার জন্য সচেষ্ট রয়েছে কলকাতা পুলিস৷‌ এদিকে পুরভোটের দিন গোলমালের মোকাবিলায় কন্ট্রোল রুম খুলেছে নির্বাচন কমিশন৷‌ রাজ্য নির্বাচন কমিশনার সুশাম্তরঞ্জন উপাধ্যায় ভোটারদের কাছে আবেদন জানিয়ে বলেছেন, নির্ভয়ে ভোট দিতে আসুন৷‌ কেন্দ্রীয় বাহিনী এসে গেছে৷‌ তারা ৮টা ডিভিশনে ঘুরবে৷‌ যে-কোনও গন্ডগোল হলে এই কন্ট্রোল রুমে খবর দেওয়া যাবে৷‌ কন্ট্রোল রুমের নম্বর ২২৮৭০৫৫২, ২২৮৭০৫৫৩৷‌ এই প্রথম একটি ড্রোনের মাধ্যমে নজরদারি করবে কমিশন৷‌ কমিশনার জানিয়েছেন, এবার কলকাতা পুরভোটে কলকাতায় মোট বুথের সংখ্যা ৪,৭০৪টি৷‌ ৩৭ লক্ষ ৫৩ হাজার ২৫৬ জন ভোটারের মধ্যে পুরুষ ২০ লক্ষ ৬৭৪, মহিলা ১৭ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৬২, অন্যান্য ২০ জন৷‌ স্পর্শকাতর বুথ ৫৩৫৷‌ স্পর্শকাতর পোলিং স্টেশন ২ হাজার ৬৪৭৷‌ ১ থেকে ৩টি বুথ আছে এমন ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে একজন এস আই বা সার্জেন্ট থাকবেন৷‌ একজন এ এস আই, দুজন রাইফেলধারী পুলিস, একজন লাঠি পুলিস৷‌ ৪ থেকে ৫টি বুথ এমন কেন্দ্রে একজন এস আই বা সার্জেন্ট থাকবেন৷‌ একজন এ এস আই, ৪ জন রাইফেলধারী পুলিস, একজন লাঠি পুলিস৷‌ ৬টির বেশি বুথ এমন কেন্দ্রে এক জন করে ইনস্পেক্টর, একজন এস আই বা সার্জেন্ট থাকবেন৷‌ একজন এ এস আই, ৪ জন রাইফেলধারী পুলিস, একজন লাঠি পুলিস৷‌ বরো ভিত্তিক নজরদারিতে থাকছে ওয়েব ক্লাস্টার৷‌ এক প্রশ্নের উত্তরে কমিশনার বলেন, বেলেঘাটায় ৩৪ নম্বর ওয়ার্ডে ২১ থেকে ২৩, ২৭ থেকে ২৯– বুথ দখলের অভিযোগের বিষয়ে রাজ্য নির্বাচন কমিশনার জানিয়েছেন, তাঁর কাছে এখনও পর্যম্ত কোনও অভিযোগ আসেনি৷‌ চিৎপুর, যাদবপুর, পাটুলি, কাশীপুর এবং ১, ৩, ২৯ নম্বর ওয়ার্ড থেকে অভিযোগ এসেছে৷‌ রূপা গাঙ্গুলির ওপর হামলার বিষয়ে রিপোর্ট পেয়েছি৷‌ পড়ে তার পর জানাব৷‌ নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, মাত্র ৩ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী আসায় এই সব স্পর্শকাতর বুথে বাহিনী মোতায়েন সম্ভব নয়৷‌ স্পর্শকাতরের মধ্যে যেগুলি অতি স্পর্শকাতর, সেখানেই টহল দেবে কেন্দ্রীয় বাহিনী৷‌ এ ছাড়াও কলকাতায় নির্বাচনের দায়িত্বে থাকছেন ২১ হাজার ৯৬২ জন পুলিসকর্মী৷‌ এরমধ্যে রাজ্য পুলিস রয়েছে ৫ হাজার৷‌ শুক্রবার থেকেই শহরের বিভিন্ন জায়গায় পুলিসি টহলদারি শুরু হয়ে গেছে৷‌ শনিবার ভোটের সময় শহর জুড়ে টহলদারি চালাবে কলকাতা পুলিসের হেভি রেডিও ফ্লাইং স্কোয়াডও৷‌ থাকছে ড্রোনের মাধ্যমে নজরদারিও৷‌ স্কুল-কলেজসহ সরকারি জায়গায় ভোটগ্রহণ কেন্দ্র হবে, সেখানেও প্রস্তুতি, নিরাপত্তা ব্যবস্হা চূড়াম্ত৷‌ শুক্রবার সকাল থেকে সব ক’টি জায়গায় বৈদ্যুতিন ভোটযন্ত্র পরীক্ষা করে নেওয়া হয়৷‌ ২০১০ সালের কলকাতা পুরসভা নির্বাচনে ১৪১টি আসনের মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেস ৯৫টি আসন পেয়েছিল৷‌ জোটসঙ্গী কংগ্রেস পেয়েছিল ১০টি আসন৷‌ এ ছাড়া বামফ্রন্ট ৩২ এবং বি জে পি ৩টি আসন পেয়েছিল৷‌ এবার জোকার দুটি গ্রাম পঞ্চায়েত কলকাতা পুরসভা এলাকায় সংযোজিত হওয়ায় ৩টি ওয়ার্ড বেড়েছে৷‌ সব মিলিয়ে ১৪৪টি আসন৷‌ আসনগুলিতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১,০৭৫ জন প্রার্থী৷‌ কারা সফল হলেন জানা যাবে ২৮ এপ্রিল গণনার পর৷‌ মাঝের কয়েকটা দিন ই ভি এম-এ বন্দী থাকবে প্রার্থীদের ভবিষ্যৎ৷‌

ভ্রাম্যমাণ পুলিস দল

কলকাতা পুলিস এলাকায় ৩৮টি ভ্রাম্যমাণ পুলিস বাহিনী ঘুরবে৷‌ প্রতি দলে ১০ জন করে৷‌ নেতৃত্বে একজন সহকারী সাব-ইনস্পেক্টর৷‌ দলের বাকিরা হলেন ১ জন সার্জেন্ট, ১ জন কাঁদানে গ্যাস নিয়ে, ৪ জন লাঠিধারী পুলিস, ১ জন রাইফেলধারী ২ জন কনস্টেবল৷‌ দেওয়া হচ্ছে উইঙ্গার গাড়ি, মিনিবাস৷‌ পরিস্হিতি অনুযায়ী ২ জন কনস্টেবলের জায়গায় ১ জন করে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানকে রাখা হতে পারে৷‌ কখনও ২ জন করে৷‌ স্পর্শকাতর এলাকায় কেন্দ্রীয় বাহিনী ঘোরাঘুরি করবে সে’র মোবাইল বাহিনীর সঙ্গে৷‌ রাজ্য পুলিসের ৫ হাজার কর্মী মূলত থাকছে রেডিও ফ্লাইং স্কোয়াড ও হেভি রে? ফ্লাইং স্কোয়াডের সঙ্গে৷‌ থাকবে ‘ড্রোন’ নজরদারি৷‌ প্রতিটি নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে থাকছে ‘ট্রেট্রা’৷‌ মূলত ট্র্যাফিকের জন্য এগুলি কেনা৷‌ গোলমালের খবর পেলেই ট্রেটার মাধ্যমেই থানা বা লালবাজার কন্ট্রোলে জানানো হবে৷‌ রেডিও ফ্লাইং স্কোয়াডের প্রায় ৪০টি দল ঘুরবে শহরে৷‌ কলকাতা পুলিসের ‘অ্যাডেড এরিয়া’র জন্য খোলা হয়েছে সাময়িক কন্ট্রোল রুম৷‌ ৩২ হাজারের কিছু বেশি পুলিস কলকাতা পুরভোটে এবার নামানো হয়েছে৷‌ নাগরিক নিরাপত্তা দিতে তৈরি প্রশাসন৷‌ ১৬টি স্ট্রং রুম করা হয়েছে৷‌ শুক্রবার সন্ধে থেকেই নানা জায়গায় পুলিসি টহলদারি চলছে৷‌ কলকাতা পুলিসের পক্ষ থেকে সন্দেহজনক ব্যক্তি বা বস্তু দেখলেই সরাসরি লালবাজারে জানাতে বলা হয়েছে৷‌





kolkata || bangla || bharat || editorial || post editorial || khela || sangskriti ||
ghoroa || tv/cinema || Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited