Aajkaal: the leading bengali daily newspaper from Kolkata
কলকাতা ১২ ভাদ্র ১৪২১ শুক্রবার ২৯ আগস্ট ২০১৪
 প্রথম পাতা   কলকাতা  বাংলা  ভারত  সম্পাদকীয়  খেলা  আজকাল-ত্রিপুরা   পুরনো সংস্করন  বইঘর 
সারা দিন সারদা- তল্লাশির ঝড়--সব্যসাচী সরকার ।। বি জে পি-র বেলুনের হাওয়া বেরিয়ে গেছে: মমতা--দীপঙ্কর নন্দী ।। পুলিসি ফতোয়া উপেক্ষা করে মিছিল চালকদের ।। ১ তারিখ থেকে বাস-মিনিবাসের নতুন ভাড়া ।। ই পি এফ: ন্যূনতম মাসিক পেনশন হল ১০০০ টাকা ।। বি জে পি জোট ছাড়লেন ভজন-পুত্র কুলদীপ ।। সি বি আই জেলে ভরবে রাঘববোয়ালদের: বৃন্দা ।। ধর্ষণ নিয়ে বেফাঁস মম্তব্য, দলেই নিন্দিত দীপক ।। বীরভূমের দুই থানার ও সি-কে ধরে আনতে বলল আদালত ।। মন্ত্রী, সচিবের ছবি দিয়ে ভুয়ো ওয়েবসাইট, বিরাট প্রতারণা! ।। শিক্ষাক্ষেত্রে নৈরাজ্য চলছে: অধীর ।। হাওড়া স্টেশনে বোমাতঙ্ক
কলকাতা

পুলিসি ফতোয়া উপেক্ষা করে মিছিল চালকদের

ব্যাঙ্ক প্রতারণা ১৩৯ কোটির!

হাওড়া স্টেশনে বোমাতঙ্ক

প্রেসিডেন্সির ডিন অফ স্টুডেন্টসকে শোকজ

পুলিসি ফতোয়া উপেক্ষা করে মিছিল চালকদের

দাবি না মিটলে ৩ সেপ্টেম্বর থেকে ‌ট্যাক্সি ধর্মঘট

Google plus share Facebook share Twitter share LinkedIn share

আজকালের প্রতিবেদন: ২ সেপ্টেম্বরের মধ্যে রাজ্য পরিবহণ দপ্তর যদি দাবিদাওয়া না মেনে নেয়, তা হলে ৩ সেপ্টেম্বর থেকে কলকাতায় লাগাতার ‌ট্যাক্সি ধর্মঘটের ডাক দিয়ে রাখল ‌ট্যাক্সিচালকদের সংগঠনগুলি৷‌ এর মধ্যে সিটু, এ আই টি ইউ সি, আই এন টি ইউ সি-সহ একাধিক ট্রেড ইউনিয়ন রয়েছে৷‌ বৃহস্পতিবার পরিবহণ দপ্তরের সামনে বিক্ষোভ মঞ্চ থেকেই এই ঘোষণা করা হয়৷‌ মূলত ভাড়াবৃদ্ধি, পুলিসি জুলুম বন্ধ-সহ একাধিক দাবিতে ৭ আগস্ট থেকে এই আন্দোলন লাগাতার জারি রেখেছে সিটু এবং এ আই টি ইউ সি৷‌ এদিন পুলিসি ফতোয়াকে উপেক্ষা করেই দুপুরে পরিবহণ ভবন অভিযান করেন চালকরা৷‌ সেই সঙ্গে সাতসকালে শহর থেকে উধাও হয়ে যায় ‌ট্যাক্সি৷‌ সাধারণ যাত্রীরা নাকাল হন আগের কয়েক দিনের মতোই৷‌ কিন্তু এখনও পর্যম্ত সরকার বা পুলিসের পক্ষ থেকে এই সমস্যার সমাধানে কোনও উদ্যোগ চোখে পড়েনি, স্রেফ কিছু হুমকি ছাড়া৷‌ চালকদের অভিযোগ, গতকাল সারা রাত তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা এবং পুলিস এদিনের মিছিল বন্ধ করার হুমকি দিয়েছে৷‌ নেতাদের কথায় রাতে ফোন করে পুলিস পিঠের ছাল গুটিয়ে দেবে বলেও শাসিয়েছে৷‌ কিন্তু আন্দোলনে অনড় চালকরা৷‌ বরং আরও উত্তেজিত হয়ে তাঁরা এদিন দুপুরেই জড়ো হয়ে যান সুবোধ মল্লিক স্কোয়্যারে৷‌ সকাল থেকেই ওই এলাকায় প্রায় রণসজ্জিত হয়ে এলাকা ছেয়ে যায় পুলিসে৷‌ তবে মিছিলে বাধা দেয়নি পুলিস৷‌ এদিন বেলা ৩টের সময় পুলিসি প্রহরার মধ্যেই মিছিল শুরু হয়৷‌ কয়েকটি ‌ট্যাক্সি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে সকাল থেকে৷‌ ভবানীপুরে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা ১২টি ‌ট্যাক্সি তৃণমূল কর্মীরা ভাঙচুর করে বলে অভিযোগ আন্দোলনকারীদের৷‌ তৃণমূলের পাল্টা অভিযোগ, যাত্রী নিয়ে যাওয়ার সময়ে কয়েকটি ‌ট্যাক্সি ভাঙচুর করেছে আন্দোলনকারী চালকেরা৷‌ পুলিস এদিন ১২ জন ‌ট্যাক্সিচালককে গ্রেপ্তার করেছে মিছিলে যাওয়ার জন্য৷‌ অভিযোগ সিটুর৷‌ এদিন মিছিলের সামনে ‘পুলিসি জুলুম বন্ধ করতে হবে’ লেখা ব্যানার নিয়ে হেঁটেছেন শ্যামল চক্রবর্তী, নওলকিশোর শ্রীবাস্তব, অনাদি সাহু, সুভাষ মুখার্জি, রাজদেও গোয়ালা, দেবাঞ্জন চক্রবর্তী প্রমুখ৷‌ এই অভিযানের ডাক দিয়েছিল সিটু এবং এ আই টি ইউ সি৷‌ কিন্তু জমায়েতে এসে যোগ দেয় আই এন টি ইউ সি, এ আই সি সি টি ইউ-সহ একাধিক ট্রেড ইউনিয়ন৷‌ মিছিলের সামনে স্লোগান দিতে দিতে হাঁটতে থাকেন রমেন পান্ডে, দিবাকর ভট্টাচার্যের মতো নেতারাও৷‌ পরিবহণ ভবনের অনতিদূরে পুলিসি ব্যারিকেডে মিছিল থেমে যায়৷‌ সেখানে হয় সংক্ষিপ্ত সভা৷‌ ৮ জনের প্রতিনিধিদল পরিবহণ দপ্তরের যুগ্ম্মসচিবের কাছে ডেপুটেশন দেয়৷‌ সভায় শ্যামল চক্রবর্তী বলেন, গতকাল রাতে পুলিসের হুমকি, শাসানি শুনে আমি নগরপালকে ফোন করি৷‌ বলি, এ সব হুমকির অর্থ কী? ‌ট্যাক্সিচালকরা কিন্তু একা নন৷‌ আমরা সমস্ত পরিবহণ শ্রমিকদের সংগঠন ওদের পাশে আছি৷‌ সবাই মিলে গোটা রাজ্য অচল করে দিতে পারি৷‌ শ্যামল চক্রবর্তী জানান, অনেকেই প্রশ্ন তুলছেন, ‌ট্যাক্সি কেন চলছে না৷‌ আমি বলি, সেটা সরকার ও পুলিসকে জিজ্ঞেস করুন৷‌ আসলে এই প্রশ্নকর্তারা উচ্চমধ্যবিত্তদের জীবনের কথা ভাবছেন৷‌ আমরা দরিদ্র শ্রমিকদের কথা ভাবছি৷‌ মানুষের অসুবিধে হচ্ছে এ কথা ঠিক৷‌ কিন্তু ৬০ হাজার ‌ট্যাক্সিচালক রয়েছেন৷‌ তাঁদের পরিবারে ৫ জন ধরলে প্রায় ৩ লক্ষ জীবন৷‌ এঁদের কথা ভাববে না সরকার? গুন্ডা, বদমায়েশদের নিয়ে মিটিং করতে পারেন৷‌ খুনের আসামিদের নিয়ে প্রকাশ্যে সভা করতে পারেন৷‌ আর দরিদ্র ‌ট্যাক্সিচালকদের সমস্যা নিয়ে একবার আলোচনা করার সময় নেই মুখ্যমন্ত্রীর? তিনি বলেন, পরিবহণমন্ত্রী মদন মিত্র অসুস্হ৷‌ তিনি তাড়াতাড়ি সুস্হ হয়ে উঠুন৷‌ কিম্ত সরকার তো হাসপাতালে যায়নি৷‌ দপ্তর রয়েছে৷‌ অন্য মন্ত্রীরা রয়েছেন৷‌ তাঁরা কী করছেন? আসলে এই চালকদের প্রতি এই সরকারের কোনও দরদই নেই৷‌ আমরাও জানি, কীভাবে কথা শোনাতে হয়৷‌ তাই ঠিক করেছি রাস্তাই রাস্তা৷‌ এবার রাস্তায় এসে সরকারকে চালকদের কথা শুনতে হবে৷‌ রমেন পান্ডে বলেন, এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী জনগণকে বলার চেষ্টা করছেন, দেখো, আমরা ভাড়া বাড়াতে দিইনি৷‌ ভুলে গেছেন, ৩ লক্ষ ‌ট্যাক্সিচালক ও তাঁদের পরিবারও জনগণের মধ্যেই পড়েন৷‌ এঁরাও সরকারকে ট্যাক্স দেন৷‌ চালকদের স্বার্থে এবার হবে যৌথ আন্দোলন৷‌ সমস্যা না মেটা পর্যম্ত আই এন টি ইউ সি এই আন্দোলনের সঙ্গে থাকবে৷‌ এ আই সি সি টি ইউ নেতা দিবাকর ভট্টাচার্য বলেন, আমরাও আছি এই আন্দোলনে, চালকদের পাশে৷‌ বলেন, আপনারা কোনও আইন ভাঙেননি৷‌ ভয় পাবেন কেন? আইন ভেঙে চলেছে পুলিস ও সরকার৷‌ তারা ভয় পাবে৷‌ দেশে কোনও আইন নেই যে, আন্দোলন মিছিল করলে গ্রেপ্তার করতে হবে৷‌ দরকারে সুপ্রিম কোর্টে যাব৷‌ নওলকিশোর শ্রীবাস্তব বলেন, পুলিস আমার নামেও মামলা করেছে৷‌ তো, আসুন গ্রেপ্তার করে নিয়ে যান৷‌ হুমকি আর মিথ্যে মামলা দিয়ে আমাদের দমাতে পারবে না৷‌ ৬০ হাজার চালককে গ্রেপ্তার করতে হবে৷‌ সাহস থাকলে করুক সরকার৷‌ সুভাষ মুখার্জি বলেন, মদন মিত্র হাসপাতালে চিকিৎসাধীন৷‌ ‌ট্যাক্সির ধাক্কায় না সারদার ধাক্কায় জানি না৷‌ তবে তিনি সুস্হ হয়ে উঠুন, এই কামনা করছি৷‌ সুস্হ হয়ে এসে আমাদের সঙ্গে কথা বলুন৷‌ দেড় বছরে ডিজেলের দাম ১৪ টাকা বেড়েছে৷‌ ভাড়া বাড়েনি৷‌ দু’বছর ধরে সমস্ত ‌ট্যাক্সিচালকের আয় কমেছে৷‌ এর ওপর পুলিসের জুলুম৷‌ মিথ্যে মামলা দিয়ে ৩ থেকে ৬ হাজার টাকা করে জরিমানা করছে৷‌ কী খাবেন ওঁরা এবং ওঁদের পরিবার? সরকার কী মনে করছে? চালকদের বাজারে যেতে হয় না? ২৪ টাকা কেজি আলু কিনতে হয় না? ১০০ টাকা কেজি লঙ্কা কিনতে হয় না? ওঁদের ছেলেমেয়েরা স্কুলে পড়ে না? সরকার না ভাবলে কে ভাববে ওঁদের কথা? কার স্বার্থে চলছে এই সরকার? অনাদি সাহু বলেন, সরকার তো জনতার রক্ষক৷‌ এখানে তো সরকারই শোষণ করছে৷‌ মদন মিত্রের উদ্দেশে বলেন, আপনিও তো ‌ট্যাক্সিচালকদের সংগঠনের নেতা৷‌ অনেক আন্দোলন করেছেন৷‌ লাগাতার ধর্মঘটও করেছেন৷‌ বামফ্রন্ট সরকার কখনও আপনার নামে মিথ্যে মামলা দিয়েছে? আমরা আজ আমাদের দাবিদাওয়া পরিবহণ দপ্তরে জমা দিয়েছি৷‌ জানিয়ে দিয়েছি, ২ সেপ্টেম্বরের মধ্যে পুলিসি জুলুম বন্ধ করতে হবে৷‌ সেই সঙ্গে অন্যান্য দাবিদাওয়া নিয়ে সরকারকে ব্যবস্হা নিতে হবে৷‌ না হলে ৩ সেপ্টেম্বর থেকে লাগাতার ধর্মঘটে যাব আমরা৷‌ সেই সঙ্গে রাজ্যের পরিবহণ শ্রমিকদের কাছে আবেদন, আপনারা আমাদের পাশে দাঁড়ান৷‌ দরকারে এই আন্দোলন রাজ্য জুড়ে ছড়িয়ে দেব৷‌


kolkata || bangla || bharat || editorial || khela || Tripura || Error Report || archive || first page

B P-7, Sector-5, Bidhannagar, Kolkata - 700091, Phone: 30110800, Fax: 23675502/5503
Copyright © Aajkaal Publishers Limited

Designed, developed & maintained by   Remote Programmer Private Limited